রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ০২:৩৪ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম ::
নরসিংদীতে কলেজছাত্র নিহত, বাসে আগুন দিয়ে বিক্ষুব্ধদের সড়ক অবরোধ ট্রেন আসতে দেখে রেললাইনে শুয়ে পড়লেন বৃদ্ধ ট্রেনে কাটা পড়া ৫ জনের কারোরই পরিচয় মেলেনি শিবপুরে সবজি বিক্রেতাকে কুপিয়ে হত্যা করেছে কিশোর গ্যাং মেঘনায় নৌকা ডুবি: ভাইয়ের মরদেহ উদ্ধার, বোন নিখোঁজ স্ট্রোক করেছেন নাফিস ইকবাল, এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে আনা হলো ঢাকায় অবশেষে মুখ খুললেন ছাগলকাণ্ডে বিতর্কিত মতিউরের স্ত্রী লাকী দাবা খেলতে খেলতেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন গ্র্যান্ডমাস্টার জিয়া মুক্তিযোদ্ধা কোটা পুনর্বহালে রায়ের বিরুদ্ধে শুনানি মুলতবি জামালপুরে হু হু করে বাড়ছে পানি, ২৫ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা

আসামিকে নির্যাতনের অভিযোগে পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা

নিউজ ডেস্ক :
  • আপডেট সময় : সোমবার, ১৭ জুলাই, ২০২৩
  • ১০৫ বার পড়া হয়েছে

মাদারীপুরের শিবচরে বৃদ্ধকে থানায় নিয়ে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগে এক পুলিশের উপ পরিদর্শকের (এসআই) বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের হয়েছে। এ ঘটনায় বিষয়টি আমলে নিয়ে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

এই ঘটনায় রোববার (১৬ জুলাই) দুপুরে মাদারীপুর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি মামলা করেছে ভুক্তভোগী আকমান মাতুব্বর (৬০) নামে এক কৃষক।
ঘটনায় বিষয়টি আমলে নিয়ে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট অভিজিৎ চৌধুরী পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তা হলেন শিবচর থানা পুলিশের উপ পরিদর্শক (নিরস্ত্র) নূর মোহাম্মদ।

ভুক্তভোগীর নাম আকমান মাদবর (৬০)। তিনি শিবচর উপজেলার বহেরাতলা দক্ষিণ ইউনিয়নের সরকারের চর এলাকার মৃত আলাউদ্দিন মাদবরের ছেলে।

মামলার এজাহার ও আদালত সূত্রে জানা যায়, মামলার বাদী একটি পাটকাটা মামলার ৪ নম্বর আসামি। আদালতের নির্দেশক্রমে আকমান মাদবরসহ আর চার আসামিকে গত রোববার (৯ জুলাই) গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসেন পুলিশের এসআই নূর মোহাম্মদ। এদের মধ্যে আকমান মাদবরকে থানার দ্বিতীয় তলার একটি কক্ষে নিয়ে যায় নূর মোহাম্মদ। পরে তাকে অমানুসিক নির্যাতন করা হয়। এতে তার বাম হাত ভেঙে যায়। পরে তাকেসহ ওই চারজনকে আদালতে পাঠানো হয়। ওই মামলায় জামিনে মুক্ত হয়ে পুলিশ সদস্য নূর মোহাম্মদকে আসামি করে আজ রোববার আদালতে মামলা দায়ের করে ভুক্তভোগী আকমান মাদবর।

ভুক্তভোগী ও মামলার বাদী আকমান মাদবর বলেন, পুলিশ সদস্য নূর মোহাম্মদ আমাকে থানার একটি রুমে নিয়ে বেঞ্চের নিচে মাথা দিয়ে সারা শরীরে লাঠি দিয়ে পেটায়। পরে প্রস্রাব ও থুথু ফেলে আমাকে দিয়ে প্রস্রাব ও থুথু চাটাইছে। এক পর্যায়ে আমাকে দিয়ে আব্বা ডাকায় ওই পুলিশ সদস্য। এই ঘটনা কাউকে বললে আবারও নির্যাতন চালানোর হুমকি দেন তিনি।

তবে নির্যাতনের অভিযোগ অস্বীকার করে শিবচর থানা পুলিশের উপ পরিদর্শক (নিরস্ত্র) নূর মোহাম্মদ বলেন, মারধরের কোনো ঘটনাই সেদিন ঘটেনি।এগুলো সব মিথ্যা ও বানোয়াট। এমনটা হলে যেদিন তাকে আদালতে চালান দিয়েছিলাম সেদিনই তিনি আদালতে বিষয়টি জানাতেন।

বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট জামাল হোসেন বলেন, থানায় বসে কোনো আসামিকে এভাবে নির্যাতন করার আইনগত অধিকার কারো নেই। ভুক্তভোগীর করা মামলায় মহামান্য আদালত পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। আমরা ন্যায়বিচার কামনা করছি।

শিবচর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন বলেন, আমি উপজেলায় একটি মিটিং এ আছি। একটু পরে আপনাকে ফোন দেব।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ ক্যাটাগরির আরো নিউজ

আর্কাইভ

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
© All rights reserved © 2023 Narsingdinews24.com
ডিজাইন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট : উইন্সার বাংলাদেশ